বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলনে ছাত্রসমাজের ভূমিকা কী ছিল?

বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলনে ছাত্রসমাজের ভূমিকা কী ছিল?    4 Marks/Class 10

উত্তর:-

ভূমিকা : উনিশ শতকের শেষে ছাত্রসমাজ বিবেকানন্দের ‘জাতীয়তাবাদী আদর্শ ও বঙ্কিমচন্দ্রের বন্দে মাতরম’ মন্ত্র দ্বারা উদ্বুদ্ধ হয়েছিল এবং বিশ শতকের প্রথমে বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছিল।

ছাত্রদের ভূমিকা : বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলনে ছাত্রদের অংশগ্রহণের বিভিন্ন দিক হল— 

১. বয়কট আদর্শ প্রচার : বিদেশি দ্রব্যসামগ্রী ও স্কুল-কলেজ বর্জন করে বাংলার ছাত্ররা বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলনের অন্যতম আদর্শ ‘বয়কট’ বা বিদেশি দ্রব্য বর্জনের আদর্শ প্রচার ও প্রসারে এবং জনমত গঠনে বিশেষভাবে সাহায্য করেছিল। 

2. সভাসমিতি : বঙ্গভঙ্গকালে ছাত্ররা বিভিন্ন সভাসমিতিতে যােগদান করে এ প্রসঙ্গে ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দের ১৭ ও ১৮ জুলাই রিপন কলেজের ছাত্র সমাবেশ এবং ৩১ জুলাই কলকাতার সব কলেজগুলির ছাত্র সমাবেশের কথা বলা যায়।

৩. স্বদেশি দ্রব্য বিক্রয় : স্বদেশি আদর্শ প্রচারের পাশাপাশি ছাত্ররা বাংলার বিভিন্ন স্থানে ৭৫টি শাখার মাধ্যমে দেশীয় পণ্যসামগ্রী বিক্রয় করত এবং বিদেশি দ্রব্যের দোকানের সামনে পিকেটিং করত।

৪. অ্যান্টি সার্কুলার সােসাইটি : বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলন থেকে স্কুল-কলেজের ছাত্রদের দূরে রাখতে কার্লাইল সার্কুলার (১০ অক্টোবর, ১৯০৫ খ্রি.), পেডলার সার্কুলার (২১ অক্টোবর ১৯০৫ খ্রি.), লিয়ন সার্কুলার (১৬ অক্টোবর, ১৯০৫ খ্রি.) জারি করা হলে তার প্রতিবাদে বিপ্লবী ছাত্র-শচীন্দ্রপ্রসাদ বসু ‘অ্যান্টি সাকুল সােসাইটি’ প্রতিষ্ঠা করেন (৪ নভেম্বর, ১৯০৫ খ্রি.), যার প্রধান লক্ষ্য ছিল শাস্তিপ্রাপ্ত ও বহিষ্কৃত ছাত্রদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা।

উপসংহার : বঙ্গভঙ্গ-বিরােধী আন্দোলনে ছাত্রদের যােগদান ছিল বাংলাকেন্দ্রিক। বাংলার বাইরের ছাত্ররা এই আন্দোলনে যােগ দেয়নি। সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতে, এই আন্দোলনকা ছাত্ররা ‘স্বনিয়ােজিত প্রচারক’-এর ভূমিকা পালন করেছিল।


Note: এই আর্টিকেলের ব্যাপারে তোমার মতামত জানাতে নীচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে গিয়ে কমেন্ট করতে পারো। ধন্যবাদ।

Class 10, Class 10 History, অধ্যায় ৭ - বিশ শতকে ভারতে নারী, ছাত্র ও প্রান্তিক জনগােষ্ঠীর আন্দোলন : বৈশিষ্ট্য ও বিশ্লেষণ

Leave a Comment

Your email address will not be published.