‘কর্তার ভূত’—কি নিছক ভূতের গল্প, নাকি রাজনৈতিক রূপক কাহিনি? ব্যাখ্যাসহ লেখাে।

‘কর্তার ভূত’—কি নিছক ভূতের গল্প, নাকি রাজনৈতিক রূপক কাহিনি? ব্যাখ্যাসহ লেখাে। Mark 5 | Class 11

উত্তর:- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা লিপিকা গ্রন্থে ‘কর্তার ভূত’ রচনাটি আসলে একটি কথিকা। এর মধ্য দিয়ে লেখক মানুষের চিরকালীন অভ্যাসের সমালােচনা করেছেন। ভূতের কথা বললেও এটি কোনাে ভৌতিক রহস্যময় গল্প নয়। এটি নিছক কোনাে রাজনৈতিক রূপক কাহিনিও নয়। এখানে রূপকের আড়ালে লেখক মানুষের ওপর চেপে বসা চিরকালীন কুসংস্কারের তীব্র সমালােচনা করেছেন।

‘ভূত’ বলতে এখানে অতীতকে বােঝানাে হয়েছে। অতীতকাল থেকেই আদিম মানুষ গােষ্ঠীবদ্ধ জীবনে অভ্যস্ত। তখন তাদের যাবতীয় ভাবনাচিন্তা তারা অর্পণ করেছিল দলের প্রাচীন ও নেতাস্থানীয় ব্যক্তির ওপর। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কর্তার মৃত্যু ঘটলেও তার ভূত অর্থাৎ ‘অতীত ধারণা’ এদেশের মানুষকে ছেড়ে যায়নি। সে প্রতি পদে পদে এদের অগ্রগতির পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। সেই জেলখানায় অনেক নিয়মের চাপে পড়ে ঘানি ঘােরাতে ঘােরাতে মানুষ তার তেজ এবং অগ্রগতির পন্থাকে হারিয়ে ফেলে। ভূত বলে প্রকৃত কোনাে বস্তু বা শক্তি কিছুই নেই যাকে অনুভব করা যায়। এটা প্রাচ্যের মানুষের মনে বাসা বেঁধে থাকা এক চিরকালীন ভয়। এই ভয়ই তাকে সভ্যতার অগ্রগতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে দেয় না। আধুনিক চিন্তাভাবনার পথে এক পা বাড়ালে তার মনের ভয় তাকে বলে ওঠে সে অশুদ্ধ হয়ে যাবে, প্রকৃত প্রাচীন ঐতিহ্যের গর্বকে হারিয়ে ফেলবে।


Note: এই আর্টিকেলের ব্যাপারে তোমার মতামত জানাতে নীচে দেওয়া কমেন্ট বক্সে গিয়ে কমেন্ট করতে পারো। ধন্যবাদ।

Class 11, Class 11 Bengali, কর্তার ভূত

Leave a Comment

Your email address will not be published.